প্রতিদিন “বৃক্ষাসন” অনুশীলন করুন আর ফিট থাকুন।

vrikshasana-1

ফিটনেস পাতাঃ-

পদ্ধতিঃ-  দাঁড়ীয়ে দুই পায়ের পাতা একসাথে রাখুন। দুই হাতের তালু কোমরের দুই পাশে সমানভাবে রাখুন। এবার ডান পা তুলুন, হাঁটু ভাঁজ করে পায়ের পাতা বাম উরুর ওপর রাখুন। পায়ের আঙুল নিচের দিকে মুখ করে থাকবে। এবার লম্বা করে শ্বাস নিন। দুই হাত কান বরাবর মাথার উপর তুলুন। দুই হাতের তালু একসাথে রাখুন। শরীরের উপরের অংশ উপর দিকে টান টান রাখুন।চোখ বন্ধ করে  স্বাভাবিক শ্বাস প্রশ্বাস নিন।৫-১০ মিনিট অপেক্ষা করুন।শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে হাত নামিয়ে আনুন।পা নামিয়ে সোজা হয়ে দাঁড়ান।৫-১০ সেকেন্ড বিশ্রাম নিন। বিপরীত দিকে একইভাবে আবার করুন। এভাবে ২-৪ রাউন্ড করুন।

উপকারিতাঃ- 

*  যারা বিষণ্ণতায় ভোগেন তাদের জন্য  অনেক উপকারী আসন।

* মনোবল ও একাগ্রতা বাড়াতে সাহায্য করে।

* হিপ প্রসারিত করে ও নমনীয়তা বাড়াতে সাহায্য করে।

* যারা কোমর ও উরুর ব্যাথায় ভুগছেন তাদের জন্য খুবই উপকারী আসন।

* পা, বুক, পিঠের পেশীর নমনীয়তা বাড়ায়।

*  গোড়ালিকে শক্তিশালী করে।

*  যারা হাঁটুর ব্যাথায় ভুগছেন তাদের এই আসন নিয়মিত করা উচিৎ

*  উরু এবং কাফ মাসল শক্তিশালী করে তোলে।

*  এটা কুঁচকিকে শক্তিশালী করে।যাদের মাঝে মধ্যেই মাসল পুল হয় তারা এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

4a739a88fed0280e75baba81d65058bf

* যাদের পায়ের পাতা সমতল তারা শরীরের ভারসাম্য ও হাঁটাচলা নিয়ে সমস্যায় থাকেন। তাদের জন্য এটি  উপকারী  আসন।

*  পায়ের লিগামেন্টকে শক্তিশালী করে।

* স্নায়ু শিথিল করে উত্তেজনা কমায়।

*  বাত ব্যাথা সারাতে সাহায্য করে।

নিষেধঃ-
*  হাই বা লো ব্লাড প্রেসার থাকলে এই আসন করবেন না।

* মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে করবেন না।

* যাদের তীব্র হাঁটুর ব্যথা আছে তারা করবেন না।

*  হিপ ইনজুরি থাকলে করবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *