আপনার শিশু পড়াশোনায় অমনোযোগী, কিছু মনে রাখতে পারে না–“ফ্রাজাইল এক্স সিনড্রোম”হতে পারে।জানুন রোগটা কি!

inheritance

ফ্রাজাইল এক্স সিনড্রোম রোগটি সম্পর্কে আমাদের তেমন বিশেষ জানা নেই।জিনঘটিত এই অসুখে বুদ্ধির বিকাশ ঠিকমতো হয় না।x ক্রোমোজোমের মধ্যে থাকা এফ.এম.আর.আই(FMRI) জিন যখন ঠিকমতো কাজ করে না তখন মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতার ওপর মারাত্তক প্রভাব ফেলে। ফ্র্যাজাইল এক্স সিনড্রোম রোগে আক্রান্ত শিশুরা মারাত্মক মানসিক রোগের শিকার হয়।এর ফলে লার্নিং ডিসএবেলিটি থেকে শুরু করে ইনটেলেকচুয়াল ডিসএবেলিটি দেখা যায় শিশুদের । এই রোগের অন্যতম উপসর্গ লেখাপড়া মনে না রাখতে পারা, অমনোযোগী হয়ে পড়া, কখনও  আবার অতি সক্রিয়তাও দেখা দেয়। তার সঙ্গে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সঠিকভাবে নড়াচড়া করতে না পারার মত সমস্যাও হয় শিশুদের।এই মুহূর্তে আমাদের দেশে প্রায় ৪ লাখ শিশু এই রোগে আক্রান্ত। অটিজমের সঙ্গে ফ্র্যাজইল এক্স সিনড্রোমের রোগটির অনেক মিল থাকলেও এটি অটিজম নয়। ছেলেদের সঙ্গে মেয়েরাও এ রোগে ভুগতে পারে। যেহেতু ফ্র্যাজাইল এক্স সিনড্রোম রোগ জেনেটিক বা ডিএনএ ঘটিত তাই এসব রোগের চিকিৎসা অত্যন্ত জটিলও বটে। যদি গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের এই রোগ চিহ্নিত করা যায় তাহলে শিশুটির বাবা-মা সিদ্ধান্ত নিতেই পারেন গর্ভাবস্থা চালিয়ে যাবেন কিনা। এভাবেই উন্নত বিশ্বে জেনেটিক রোগকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *