“পুজোয় পথ শিশুদের মুখে হাসি ফোটানোর প্রয়াস”–লেখাটি পাঠিয়েছেন-দেবাশীষ সিং

india-forbidden-eggs.jpeg-1280x960আমার আপনার পূজোতো চলে এল ঘুরে আর পথশিশুদের পূজো??? পূজোর দিনগুলি পথশিশুরা হাসুক সাথে হাসবেন আপনিও। পূজোর কোনো আনন্দই স্পর্শ করে না তাদের  জীবনে। অন্য আর দশটা দিনের মতোই সাদামাটা কাটবে তাদের পূজোর দিনগুলি। রাস্তায় ফুটপাতে যাদের জীবন কাটে তাদের আবার পূজোর আনন্দ কিসের দুবেলা পেটপুরে খাবারই তো তাদের জোটে না। এদিক-সেদিক থেকে পচা বাসি খাবার যা পাওয়া যায় তা খেয়ে কোনো রকম চলে পথশিশুদের জীবন।পথশিশুরা পথের নয়, এই সমাজেরই পাথেয়। তাদের মাঝেই লুকিয়ে আছে এই সমাজের উচ্চ বিত্ত্বের শোষণ ও বঞ্চণার করুণ কাহিনী। বড়লোকেরা নিজেদের আভিজাত্যের প্রমাণ দিতে দামী বারে গিয়ে দুই পেগ মদ গিলতে পারে, যদি ঐ বড় মানুষগুলো পথশিশুদের জন্য কিছু টাকা দান করে তাহলে শিশুগুলো একটু খাবার খেতে পারে বা একটু নতুন পোশাক পরতে পারে।

child-labout-motorbike-factory-afghanistan

এবার এক ঝাক মানুষ দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছে কিছু দুঃস্থ শিশুর মুখে হাসি ফোটাবে বলে। যে যেখান থেকে যতটুকু পারছে সাহায্য করছে চাকদহের “অবক্ষয়” সংগঠনের সাথে যুক্ত থাকা পথশিশুদের জন্য। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে মনে করি, পথের ভিক্ষুককে ৫/১০টাকা না দিয়ে এই সংগঠনগুলোকে কিছু সাহায্য করাই শ্রেয়। আপনার দেওয়া সাহায্যে ওরা পড়বে, খাবে, হাসবে। এর চেয়ে বড় পাওয়া আর কি হতে পারে তাদের। অনেকে মনে মনে ভাবেন, আমার সামর্থ্য না হয় ১০টাকা হবে। এই টাকা দিয়ে কার কি হবে। অথচ, আপনার মত ১০ জনের ১০টাকা দিয়েই কিন্তু ১০০টাকা হয়ে যায়। আসুন, যে যার অবস্থান থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই।

Dennis Bautista - From Rizal, Philippines

নোংরা সমাজকে বদলে দেওয়ার ক্ষমতা আমাদেরই আছে।আসুন আমরা সেই ক্ষমতাকে কাজে লাগাই। তবে এবার আমার ফেসবুকের কিছু কিছু চেনাজানা পরিচিত Ardhendu_Roy , Gouri_Ghosh , Devabrata_Das , Kunal_Ghosh , Subir_Da , Sreeparna_Roy , Abhijit_Chatterjee , Amit_Naiya ,আরো অনেকে  ১লা_অক্টোবর পথশিশুদের পূজোর পোশাক বিতরণ করবেন। কিছুটা হলেও “প্রয়াস” করেছে তাদের মাঝে নতুন পোশাকের আনন্দ ছড়িয়ে দেবার জন্য। তাদের এ উদ্যোগ সত্যিই খুব প্রশংসনীয়, আমাদের সমাজের অসহায় এসব পথশিশুদের মাঝে এ সামান্য সহায়তা তাদের পূজোর আনন্দে কিছুটা হলেও ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *