শুধু শ্লোগানে সীমাবদ্ধ থাকলে “শিশুশ্রম” রোধ হবেনা।

আজ-বিশ্ব-শিশুশ্রম-প্রতিরোধ-দিবসফিচার ডেস্কঃ আজ শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস। শিশু অধিকার প্রতিষ্ঠা ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম বন্ধে রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনকে একজোটে কাজ করায় উদ্বুদ্ধ করতে এই দিবসটি পালিত হয়।

১৯৮৯ সালের ২০ নভেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ‘জাতিসংঘ শিশু অধিকার  আইন অনুমোদিত হয়। ১৯৯২ সালে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) শিশুশ্রম বন্ধ করতে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করে। এবং ২০০২ সালের ১২ জুন থেকে প্রতিবছর আইএলও’র তত্ত্বাবধানে প্রতিবছর দিনটি ‘বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস’ হিসেবে পালন করা শুরু হয়।

বর্তমানে ভারতসহ ৮০টি দেশ বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালন করে। আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা’র সর্বশেষ  পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বের প্রতি ছয় জন শিশুর মধ্যে একজন শ্রমিক এবং প্রতি তিন শিশু শ্রমিকের মধ্যে দুইজনই গৃহকর্মের সাথে যুক্ত।

বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে গৃহকর্মী  শিশুদের সুরক্ষায় তেমন কোন ব্যবস্থা নেই। আইএলও’র হিসাবে সারা বিশ্বে প্রায় ২৫ কোটি ৬০ লাখ শিশু নানাভাবে শ্রম বিক্রি করছে। তার মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে ১৮ কোটি। আইএলও’র হিসাবে যে সংখ্যা দেয়া হয়, বাস্তবে এর সংখ্যা আরও বেশি।

বিশ্বজুড়ে শিশুরা কলকারখানা, হোটেল-রেস্তোরাঁ, বাসাবাড়িতে কাজ করা ছাড়াও মাদক উৎপাদন ও পাচার, পর্নগ্রাফি, যৌনকর্মী ও দাসত্বের ইত্যাদি কাজের সঙ্গে যুক্ত। শিল্পায়নের যুগেও কমছে না ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম।প্রতিদিন অসংখ্য শিশুশ্রমিকের ঝুঁকিপূর্ণ কাজের কারনে প্রানহানির ঘটনা ঘটছে। আমরা সকলেই তাকিয়ে আছি শিশুরা কবে এই দাসত্ব থেকে মুক্তি পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *