“ঘুরে আসুন পৌষ মেলায় উৎসবমুখর শান্তিনিকেতনে”

poush-mela-shantiniketan-bengal1আর কয়েক দিন বাদেই শান্তিনিকেতন মেতে উঠল পৌষ মেলায়।১৮৯৫ খ্রিস্টাব্দের পৌষ মাষে শান্তিনকেতনে শুরু হয়েছিল মেলা। এবার ১২২ বছর পা দেবে।এক সময়ে এ মেলার নাম ছিল ভুবনডাঙার মেলা। এখন গোটা বিশ্ব শান্তিনিকেতনের পৌষ মেলা নামে এক ডাকে চেনে।পরে মেলা উঠে আসে পূর্বপল্লির মাঠে।এখন অবশ্য মেলার কোনও গণ্ডি নেই। পৌষ মেলা চলে গোটা শান্তিনিকেতন জুড়েই।ছড়িয়ে যায় খোয়াই অবধি। ব্রহ্মোপাসনার মাধ্যেমে মেলার সূচনা হয়ে প্রতি দিন নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মেতে ওঠে পৌষের মেলা।একতারার সুর আর পিঠেপুলির গন্ধে মেতে ওঠে মেলা।

poush-mela

এ মেলার বড় বিশেষত্ব হল হস্তশিল্প ও গ্রামীণ কৃষ্টি। সেই সঙ্গে ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মিশেল। মাটির পুতুল, ডোকরা, বাঁশি, ডুগডুগি, চর্মশিল্প, একতারা— কী নেই সেখানে!সাংস্কৃতিক মঞ্চে রায়বেশে, মুখোশনৃত্য, আলকাপ, রণপানৃত্য, ছৌ নাচ হয়।আর বাউল-ফকিরের গান তো থাকছেই।শীতকে উপেক্ষা করে কাতারে কাতারে মানুষ ভিড় করে পৌষ মেলায়।

কিভাবে যাবেনঃ হাওড়া থেকে গণদেবতা, ইন্টারসিটি, শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেস, শহীদ এক্সপ্রেস সহ বেশ কিছু ট্রেনে চেপে ৩ ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে যাবেন বোলপুর ষ্টেশন।ষ্টেশন থেকে ২০মিনিট লাগবে শান্তিনিকেতন পৌছতে।

shantiniketan-20123-001

থাকবেন কোথায়: ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্যুরিজিমের একটি বেশ ভালো অতিথি নিবাস রয়েছে এখানে।৫০০ থেকে ২০০০ টাকার ঘর পাওয়া যাবে এখানে।এছাড়াও শান্তিনিকেতনে বহু হোটেল আর রিসর্ট আছে।তবে পৌষ মেলা আর বসন্ত উৎসবে এখানে আসতে গেলে অন্তত পক্ষে ৩ মাস আগে বুকিং করে আসাই ভালো।

PC231639 copy

2 Comments

  1. বাউল মেলাটি কবে ?

    • ২৩ ডিসেম্বর…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *