শীতে ত্বকের যত্ন কীভাবে নেবেন?

skin-care-in-winter

শীতকালে আদ্রতা ও তাপমাত্রা দুটোই কমে যাওয়ার কারনে ত্বকের বিশেষ পরিচর্যার প্রয়োজন হয়।যদিও প্রকৃতি আমাদের শরীরে এমন শক্তি ও গুন দিয়েছে যে আমরা প্রতিকুল অবস্তার সঙ্গে যুজতে পারি।কিন্তু এসত্ত্বেও, বিশেষ করে শীতকালে ত্বকের উপযোগী যত্নের দরকার।

তেলতেলে ত্বকের জন্যঃ যাদের তেলতেলে ত্বক তারা অয়েল ফ্রি ক্লিনজিং ও ময়েশ্চারাইজ প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন।টম্যাটোর রস খুব ভালো ঘরোয়া ময়েশ্চারাইজার।লেটুস পাতার রস, মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে লাগাতে পারেন।আনারস, আপেল, পাকা পেঁপের সঙ্গে মধু মিশিয়ে প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

শুকনো ত্বকের জন্যঃ এই ত্বকের জন্য প্রয়োজন ময়েশ্চারাইজার ধরে রাখা।ভিটামিন-ই অয়েল ১/২ চামচ, ১/২ চামচ গ্লিসারিন মিশিয়ে প্রতিদিন লাগাতে পারেন।ত্বকে পুষ্টি জোগাতে ডিমের কুসুম, ১ চা চামচ মধু, ১/২ চামচ অলিভ অয়েল ও গোলাপজল মিশিয়ে সারা মুখে লাগিয়ে ১৫ মি. রেখে ধুয়ে ফেলুন।সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করতে পারেন।

মিশ্র ত্বকের জন্যঃ ত্বকের শুষ্ক জায়গাগুলো অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন।সিদ্ধ করা মিষ্টি কুমড়ো চটকে তার সঙ্গে মধু ও দুধ পরিমাণ মতো মিশিয়ে ২০ মি. রেখে তারপর ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন।প্যাকটি সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

এছাড়া ত্বকের যত্নে নিম্নোক্ত কাজগুলো করতে পারেন:

*নিয়মিত ত্বকে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

*নিয়মিত সানস্ক্রিন লোসন ব্যবহার করুন।

* মাঝে মাঝে মুখে জলের ঝাপটা মারুন।

*বেশি গরম জল ব্যবহার করবেন না।

*স্নানের পর ও মুখ ধোয়ার পর ভেজা অবস্থায় ময়েশ্চারাইযার ব্যবহার করুন।

*কখনোই ‍জিভ দিয়ে ঠোঁট ভেজাবেন না।কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মধুর সাথে মিশিয়ে ঠোঁটে লাগালে ঠোঁট কখনোই ফাটবে না।

*হাত এবং পায়ের জন্য লোশন বা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। এতো গেল রূপচর্চার কথা এবার আসা যাক খাবারের প্রতি।সবুজ শাক-সবজি ও ফলমূল খাওয়ার অভ্যাস করুন। এছাড়া শরীরের ভেতরের আর্দ্রতা ধরে রাখতে প্রচুর জল পান করুন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *