অনুপ্রেরনার সাহসী মুখ “জে”

image_170431_0মহিলার মনের জোর আছে বটে!জীবন যুদ্ধের লড়াইটা যে কোন অ্যাডভেঞ্চার গল্পকেও হার মানায়।স্তন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করেছেন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা কোষে।অস্ত্রোপচারে বাদ গিয়েছে দু’টি স্তনই।তবু মনের জোর হারাননি। সেই অবস্থাতেই ‘টপলেস’ মডেলিং করেছেন সাউথ ওয়েলসের যুবতী জে ইস্টউড।

সোশ্যাল মিডিয়ায় জে-র ছবি ছয়লাপ হয়ে গেছে। সকলেই ধন্য ধন্য করছেন  জে-র লড়াইকে। জে অবশ্য নিরুত্তাপ। তিনি বলছেন, ‘নারীর আসল সৌন্দর্য তার হৃদয়ে। অঙ্গহানি কারও সৌন্দর্যের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন না।’একইসঙ্গে তার উপলব্ধি, ‘অস্ত্রোপচারের পর নিজেকে দেখে পুরুষ মনে হয়েছিল। মাথায় একটাও চুল নেই। স্তন বাদ দেওয়ায় পুরুষদের মতো শারীরিক গঠন হয়ে গেছে।মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম।তবে এই ধাক্কাটাই তাঁকে মডেলিং করার সাহস জুগিয়েছে। জে বলছেন,আমার অবস্তায় বাকি রুগিরাও আমার মত মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন।তাই আমি ব্যতিক্রমী হতে চেষ্টা করি।হতে পারে ওঁরাও আমাকে দেখে অনুপ্রেরণা পাবে।তাই খোলামেলা ভাবে নিজেকে ক্যামেরার সামনে তুলে ধরলাম।’ জে-র এই সিদ্ধান্তের পাশে দাঁড়িয়েছে গোটা বিশ্ব।জে-কে এখন অনুপ্রেরণার সাহসী মুখ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *