স্বনামধন্য বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবি আর আমাদের মধ্যে নেই।

sridevi-lamheরবিবার ভোরে সাদমাটা লাগলো।চলে গেলেন চাঁদনী, চাঁদের দেশে। হাওয়ায় মিলিয়ে গেলেন হাওয়া হাওয়া।রূপ কি রাণী শ্রীদেবী আর আমাদের মাঝে নেই। বিজলী আর কেউ ছড়াবেন না।
প্রখ্যাত বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবী’র  মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৫৪ বছর। শনিবার রাতে দুবাই’র একটি হাসপাতালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে এক খবরে নিশ্চিত করেছে এনডিটিভি।

শ্রীদেবী কাপুর তার জন্মনাম শ্রী আম্মা ইয়াঙ্গের আয়্যাপান। ১৩ আগস্ট ১৯৬৩ – ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮।একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী যিনি তামিল, তেলুগু, হিন্দি, মালয়ালম এবং কিছু সংখ্যক কন্নড় চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রে প্রথম নারী সুপারস্টার বিবেচিত হন। অসাধারণ রূপের জাদুতে মুগ্ধ আমরা।

১৯৬৭ সালে শিশু শিল্পী হিসেবে রুপালি পদ্মায় আত্মপ্রকাশ করেন বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার শ্রীদেবী। তিনি খ্যাতনাম পরিচালক বরুন কাপুরের স্ত্রী। এছাড়াও তার দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবী অসংখ্য জনপ্রিয় ছবিতে অভিনয় করেছেন। দীর্ঘ বিরতি দিয়ে ২০১২ সালে তিনি ইংলিশ ভিংলিশ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে আবারও বলিউডের পর্দায় ফিরে আসেন।

২০১৩ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মাশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করে। তিনি ভারতীয় নারী অভিনেত্রীদের মধ্যে সর্বাধিক পুরস্কার জয়ী অভিনেত্রী।তার মৃত্যুর সময় শয্যার পাশে ছিলেন, স্বামী বরুন ও মেয়ে খুশি।

বক্স অফিসে হিট হওয়া তাঁর ছবির মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হচ্ছে, মাওয়ালি (১৯৮৩), তোহফা (১৯৮৪), মিস্টার ইন্ডিয়া (১৯৮৭), চাঁদনী (১৯৮৯) ‘সাদমা’ (১৯৮৩), চালবাজ (১৯৮৯) এবং নাগিন।

সদা লাস্যময়ী দুষ্টুমি আর ছেলেমানুষী প্রাণশক্তিতে ভরা প্রিয় অভিনেত্রী সম্পর্কে একটা কথাই মুখে আসে পাগলীটা। তাই সদমা তে তাকে অভিনয় করতে হয়নি তার সরলতা এমনি ফুটে উঠেছে। তার হাতের নয় নয় আঠারো চুরি যখন বাজত তখন আপামর ভারতের যুবকবৃন্দ দীর্ঘশ্বাস লুকাতো। নয়নে মে স্বপ্না গানের নাচ সর্বকালের সেরা। তোফা ছবিতে আত্মত্যাগ বা লাডলা ছবির আত্ম অহঙ্কারী বা জুদাই ছবির লোভী বধূ সবেতেই তিনি মানানসই নিজস্ব ভঙ্গি তে।

মিঠুন চক্রবর্তী, অমিতাভ বচ্চন,জিতেন্দ্র বা সলমান খান সকলের বড় প্রিয় শ্রীদেবী।শ্রীদেবীর সমালোচকরাও বলেন, তার অভিনীত ‘লামহে’ ভারতীয় সিনেমার ১০০ বছরের ইতিহাসে সেরা ১০টি রোমান্টিক সিনেমার মধ্যে অন্যতম। যেটি ১৯৯১ সালে ‍মুক্তি পেয়েছিল। এছাড়াও তার হিট ছবি ছিলো গোমরাহ (১৯৯৩)। ২০১৭ সালে শ্রীদেবী অভিনীত শেষ ছবি ‘মম’ বক্স অফিসে যথেষ্ট সাফল্য পেয়েছিল।

মাত্র ৫৪ বছর বয়সে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন বলিউড কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী। শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী দুবাইয়ে তিনি মারা যান। তার এই হঠাৎ পরলোকগমনে শোকসন্তপ্ত হয়ে পড়েছে গোটা বলিউডপাড়া।চলচ্চিত্র শিল্পের অভিনেতা-অভিনেত্রী, গায়ক-গায়িকা, কলাকুশলীরা সবাই শোকাহত।

তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার কিছুক্ষণ আগে শ্রীদেবীর সঙ্গে একাধিক ছবিতে কাজ করা বিগবি অমিতাভ বচ্চন  টুইট করেছিলেন। যেখানে তিনি লেখেন- জানি না কেন এত অসহায় লাগছে। ঠিক এর কিছুক্ষণ পরই শ্রীদেবীর মৃত্যুর সংবাদ আসে।

শ্রীদেবীর মৃত্যুতে জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়া আজকের দিনটাকে কালো দিন বলে উল্লেখ করে বলেন, আমার বলার কোনো ভাষা নেই। শ্রীদেবীকে যারা ভালোবাসতেন, তাদের সবার জন্য সমবেদনা।

অভিনেত্রী প্রীতি জিনতা টুইট করেছেন, আমার অলটাইম ফেভারিট শ্রীদেবী নেই শুনে আমি ব্যথিত। তার আত্মার শান্তি কামনা করি। ওর পরিবার শক্তি পাক।

বলিউডের শক্তিমান অভিনেতা বোমান ইরানি বলেছেন, ঘুম ভাঙল এই খারাপ খবরটা শুনে। আমাদের শ্রীদেবীজি আর নেই। বনি এবং ওর পরিবারের প্রতি রইল সমবেদনা।

চিত্রনায়িকা নেহা ধুপিয়া টুইটারে লিখেছেন- শ্রীদেবী মেম নেই! আমরা আমাদের সবচেয়ে সুন্দর অভিনেত্রীকে হারালাম।

অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ বলেছেন- শ্রীদেবী! আমার একজন আইকনকে এত তাড়াতাড়ি হারালাম।

জনপ্রিয় গায়ক আদনান সামি বলেছেন- শনিবার গভীর রাতে খবরটা পাওয়ার পর কথা বলার মতো অবস্থায় নেই। অসাধারণ প্রতিভা। রেস্ট ইন পিস।

সুস্মিতা সেন বলেন, শুনলাম শ্রীদেবী ম্যাম চলে গিয়েছেন। কান্না থামাতে পারছি না।

একসময়ের জনপ্রিয় নায়িকা রাভিনা ট্যান্ডন বলেছেন- একটি খারাপ খবরে ঘুম ভাঙল। কেন এমন হল! এত তাড়াতাড়ি চলে গেল শ্রী!

হালের জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ বলেছেন- আমার প্রিয় অভিনেত্রী। কিংবদন্তি। তার এভাবে চলে যাওয়াটা…। তার পরিবারের প্রতি রইল সমবেদনা।

অভিনেতা ঋষি কাপুর বলেন, ঘুম থেকে উঠেই এ খবরটি শুনলাম। বনি ও তার দুই মেয়ের জন্য রইল আমার সমবেদনা।

শুধু ফিল্মিপাড়াই নয়। এ শোক ছেয়ে গেছে রাজনীতির মাঠেও। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন- শ্রীদেবীর মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত। বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রীর এভাবে চলে যাওয়াটা মেনে নেয়া যায় না। তার পরিবারের প্রতি রইল আমার সমবেদনা। তার আত্মার শান্তি হোক।

ভারতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও অভিনেত্রী স্মৃতি ইরানি বলেছেন- দুর্দান্ত অভিনেত্রী ছিলেন। দীর্ঘদিন সুনামের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। তার মৃত্যুতে আমি শোকাহত। তার পরিবার ও ভক্তদের জন্য রইল সমবেদনা।

তিনি শ্রী, মোহময়য়ী,  প্রিয় অভিনেত্রী আমাদের।তার এভাবে চলে যাওয়া প্রমাণ করে তারকারা ক্ষণজন্মা তবে দ্যুতিময়ী।  প্রিয় তারকার আত্মার শান্তি কামনা করি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *