মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ

madhyamik-300x191১১)অঙ্ক পরীক্ষার সময় অঙ্কের পাশে পাশে রাফ ওয়ার্ক টাও রেখো।কেটে দিওনা।
১২)জীবন বিজ্ঞান প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের ছবি সব সময় লেখার সঙ্গে থাকা বাধ্যতামূলক। পরে বা শেষে আঁকবো বলে ফেলে রাখবেনা।
১৩)ইতিহাসে খুব ভালো করে নেতাজী ও আজাদ হিন্দ ফৌজ এবং প্রথম বিশ্বযুদ্ধ অধ্যায়টা দেখে যেও।
১৪)পুরো প্রশ্নপত্রটি ভাল করে না পড়ে উত্তর লেখা শুরু কোরো না।
১৫)যে প্রশ্ন গুলো খুব চেনা,জানা বা বহুবার পড়ে মুখস্থ হয়ে গেছে,সেগুলো আগে উত্তর করবে।
১৬)একই প্রশ্নের বিভিন্ন অংশ এর উত্তর বিভিন্ন জায়গায় করবে না।একটু জায়গা ছেড়ে,পরপর লেখার চেষ্টা করবে।সম্পূর্ণ হয়ে গেলে লাইন টেনে বুঝিয়ে দেবে যে ওই উত্তর টা তোমার লেখা শেষ হয়ে গেছ।
১৭)উত্তর লেখার সময় বানান ভুল খুব বাজে ধারণা তৈরি করে এক্সামিনারের মনে,সেদিকটাও খেয়াল রেখো কিন্তু!
১৮)ইতিহাসের মানচিত্র খাতার মাঝে(মূল খাতা)বেঁধে দেবে।শুরু বা শেষে একদম নয়।খুলে গিয়ে হারিয়ে গেলে তার দায় কিন্তু এক্সামিনারের নয়।
১৯) অঙ্কের গ্রাফ অবশ্যইই খাতার মাঝখানে আটকাবে।যেখানে আটকাবে,সেখানেই যেন সংশ্লিষ্ট সমাধানটি থাকে।
২০)জীবন বিজ্ঞান ও প্রাকৃতিক বিজ্ঞানে কখনো কোনো ছবি পেন দিয়ে অঙ্কন করবে না।
(ক্রমশ….)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *