২৩শে মার্চ ১৯৩১- অগ্নিযুগের শহীদ বিপ্লবী “ভগৎ সিং”এর ফাঁসি হয়েছিল…

images-2ভগৎ সিং- ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী আন্দোলনের  একজন পুরোধা ব্যক্তিত্ব ও অগ্নিযুগের শহীদ বিপ্লবী। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে তিনি ছিলেন অন্যতম প্রভাবশালী বিপ্লবী। যাকে শহিদ-ঈ আজম ভগৎ সিংহ নামে অভিহিত করা হয়।ভগৎ সিং এর জন্ম জাট শিখ পরিবারে। তাঁর পরিবার আগে থেকেই ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত ছিল।কৈশোরে ভগৎ ইউরোপীয় বিপ্লবী আন্দোলনের ইতিহাস সম্পর্কে পড়াশোনা করেন এবং ণৈরাজ্যবাদ ও কমিউনিজমের প্রতি আকৃষ্ট হন।তিনি একাধিক বিপ্লবী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। হিন্দুস্থান রিপাবলিকান অ্যাসোসিয়েসনের (এইচআরএ) সঙ্গে যুক্ত হয়ে মেধা, জ্ঞান ও নেতৃত্বদানের ক্ষমতায় তিনি অচিরেই এই সংগঠনে নেতায় পরিণত হন।পরে তিনি সংগঠনে অনেক পরিমার্জন করেন।সংগঠনকে কটাক্ষ করে যখনি কেউ নৈরাজ্যবাদী আখ্যা দেওয়ার চেষ্টা করত তখনই তিনি ক্ষুরধার যুক্তিতে তা খন্ডন করতেন।সে সময় জেলের ভেতর বৈষম্য চলত।ভারতীয় ও ব্রিটিশ বন্দীদের সমানাধিকারের দাবিতে ৬৪ দিন টানা অনশন চালিয়ে তিনি ব্রিটিশ রাজকে নতিস্বিকারে বাধ্য করাতে পেরেছিলেন।প্রবীণ স্বাধীনতা সংগ্রামী লালা লাজপত রায়ের হত্যার প্রতিশোধে এক ব্রিটিশ পুলিশ অফিসারকে গুলি করে হত্যা করেন ভগৎ সিং।বিচারে ফাঁসির আদেশ হয়। ভগৎ সিং এর দৃষ্টান্ত শুধুমাত্র ভারতীয় যুবসমাজকেই স্বাধীনতা সংগ্রামে উদ্বুদ্ধই করেনি, ভারতে সমাজতন্ত্রের উত্থানেও প্রভূত সহায়তা করেছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *