ম্যান বুকার- অমিতাভ ঘোষ

232746amitabh_ghos_Kalerkantho_piনদীর বহমান ধারার মতো  অমিতাভ ঘোষের উপন্যাসগুলি। কথাসাহিত্য ছাড়াও তার কলমে উঠে এসেছে নানান স্বাদের নন-ফিকশান এবং ইতিহাস নির্ভর রচনা।

লেখকের জন্ম কলকাতায় ১৯৫৬ সালে ১১ই জুলাই অমিতাভ ঘোষের জন্ম কলকাতায়। বাবা সেনাবাহিনীর লেফ্‌টেনান্ট কর্নেল ছিলেন, পরে কূটনীতিবিদের কাজে যোগ দেন।তাই খুব অল্প বয়স থেকেই থাকতে হয়েছে পৃথিবীর নানান দেশে–পূর্ব পাকিস্তান, শ্রীলংকা, ইরান এবং ভারতবর্ষে।

দুন স্কুলে লেখাপড়া তারপর নতুন দিল্লির সেন্ট স্টিফেন্‌স কলেজ থেকে ইতিহাসে বি.এ. এবং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিদ্যায় এম.এ.। তারপর তিনি টিউনিসিয়ার রাজধানী টিউনিস শহরে Institut Bourguiba des Langues Vivantes নামক শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান থেকে আরবী ভাষার ডিপ্লোমা পান এবং সেখান থেকে যোগ দেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। অক্সফোর্ডের সেন্ট এডমান্ডস হল থেকে সামাজিক নৃতত্ত্ববিদ্যায় ডি.ফিল.। এই কাজের সূত্রে তাকে দীর্ঘ সময় কাটাতে হয়েছিল মিশরের লাতাইফা গ্রামে ক্ষেত্রসমীক্ষার কাজে। ১৯৮২ সালে দেশে ফিরে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা এবং দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদপত্রে সাংবাদিকতার ফাঁকে ফাঁকে শুরু করেন তাঁর প্রথম উপন্যাসের রচনা।

এখনও পর্যন্ত আটটি উপন্যাস এবং একটি ইতিহাস ভিত্তিক কাহিনি মিলে তাঁর সাহিত্য সম্ভার। পাশাপাশি প্রবন্ধসাহিত্যের তালিকাটিও দীর্ঘ– ঐতিহাসিক, রাজনৈতিক ও নৃতাত্ত্বিক বিষয়গুলিতে ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ করেছেন পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ঘটে যাওয়া পরিবর্তন ও দুর্ঘটনার।

লেখকের উপন্যাসগুলিঃ-

১। The Circle of Reason; ১৯৮৬
২। The Shadow lines;১৯৯০
৩। The Calcutta chromosome;১৯৯৫
৪। The Glass palace;২০০০
৫। The Hungry Tide;২০০৪
৬। Sea of poppies; ২০০৮
৭। River of Smoke; ২০১১
৮। Flood of Fire;২০১৫

নন-ফিকশান

১। In an Antique land;১৯৯২।
২। Dancing in Combodia, At large in Burma; প্রকাশ ১৯৯৮।
৩। Countdown;১৯৯৯।
৪। The Imam and The Indian;২০১২।
৫। Incendiary Circumstance; ২০০৬।
৬। The Great Derangement: Climate Change and the Unthinkable (2016)

২০০৮ সালে ম্যান বুকার প্রাইজের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন অমিতাভ ঘোষ। কিন্তু, অল্পের জন্য সেরার শিরোপা পায়নি তাঁর ‘সি অফ পপিস’ বইটি।১৯৯০ সালে রচিত দ্য শ্যাডো লাইন উপন্যাসের জন্য অমিতাভ ভারতের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সাহিত্য পুরস্কার,সাহিত্য অকাডেমি পুরস্কার পান। ১৯৯৫ সালে রচিত ক্যালকাটা ক্রোমোজোম-এর জন্য আর্থার সি ক্লার্ক পুরস্কার পান। ২০০৭ সালে ভারত সরকার তাঁকে পদ্মশ্রী  সম্মানে ভূষিত করে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *