চীনের ওপর ভারতের নজরদারি….

441971ভারত মহাসাগরে চীনের ক্রমবর্ধমান উপস্থিতি প্রতিহত করতে ভারতের  কাছে  গুরুত্বপূর্ণ  হয়ে  উঠছে আন্দামান-নিকবর দ্বীপপুঞ্জ।ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক চীনের বিরুদ্ধে আড়িপাতার জন্য আন্দামান- নিকবর দ্বীপপুঞ্জকে কৌশলগতভাবে ব্যবহার করবে। দ্বীপপুঞ্জের সাদামাটা সামরিক ঘাটিকে কৌশলগত কারণে বিমান বাহিনী, নৌসেনা ও পদাতিক বাহিনী দিয়ে ঢেলে সাজাচ্ছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। ভারত মহাসাগরে নয়াদিল্লির আধিপত্য বজায় রাখার বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

2_img120116092721

 

চীনা নৌবাহিনীর ওপর নজরদারি করতে আন্দামান-নিকবর দ্বীপপুঞ্জের ভৌগলিক অবস্থানকে উপযুক্ত মনে করছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। বঙ্গোপসাগর এবং আন্দামান সাগরের মধ্যে বিস্তৃত আন্দামান নিকবর দ্বীপপুঞ্জ এবং এই দ্বীপপুঞ্জ ভারতের মূল ভূখণ্ডের থেকে মায়ানমার এবং ইন্দোনেশিয়ার অনেক কাছাকাছি। আরো গুরুত্বপূর্ণ হল, আন্দামান-নিকবরের দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপগুলো মালাক্কা প্রণালীর কাছাকাছি অবস্থিত। ভারত মহাসাগরে ঢোকার পথ হিসেবে ব্যবহৃত হয় মালাক্কা প্রণালী এবং এই জলপথেই চিনের ব্যবহারের জন্য দুই তৃতীয়াংশ জ্বালানি তেল আসে।

China boat

চীন-ভারতের সম্পর্কের টানাপোড়েন দীর্ঘদিনের। হিমালয় সীমান্ত নিয়ে বিরোধের জেরে ১৯৬২ সালে চীন-ভারত যুদ্ধ। এ ছাড়া, ইদানীং ভারত মহাসাগরে চীনা ডুবোজাহাজের আনাগোনা নিয়ে ভারতের উদ্বেগে বেড়েছে।সম্প্রতি ‘এনএসজি’তে ভারতের সদস্যপদ পাওয়া নিয়ে চীনের ভারত বিরোধিতা, সম্পর্ক তলানিতে এনে দিয়েছে।

People's Republic of China frigate PLA(N) Yueyang (FF 575) steams in formation with 42 other ships and submarines representing 15 international partner nations during Rim of the Pacific (RIMPAC) Exercise 2014. Twenty-two nations, more than 40 ships and six submarines, more than 200 aircraft and 25,000 personnel are participating in RIMPAC exercise from June 26 to Aug. 1 in and around the Hawaiian Islands and Southern California. The world's largest international maritime exercise, RIMPAC provides a unique training opportunity that helps participants foster and sustain the cooperative relationships that are critical to ensuring the safety of sea lanes and security on the world's oceans. RIMPAC 2014 is the 24th exercise in the series that began in 1971. (U.S. Navy photo by Mass Communication Specialist 1st Class Shannon Renfroe/Released)

মালাক্কা প্রনালি থেকে মাত্র ২৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে গ্রেট নিকবর দ্বিপের ‘ক্যাম্পবেল বে’ তে ৬ হাজার ফুটের বিমান ক্ষেত্র নির্মাণের কাজ চলছে। ২০১২ সালে এই বিমান ক্ষেত্রটি ৩ হাজার ফুটের ছিল। এই বিমান ক্ষেত্র থেকে দুরপাল্লার বিমানের ওপর নজরদারী চালাবে ভারত।  চীনা সামরিক কর্তাব্যক্তিরা ভারতীয় পদক্ষেপকে আক্রমণাত্বক ভূমিকা হিসেবে দেখছেন। আন্দামানের পোর্ট ব্লেয়ার থেকে ভারতের নজরদারি বিমান বোয়িং পি৮আই ওড়ে।এ বিমানের ডুবোজাহাজের ওপর নজর রাখার সক্ষমতা আছে। ‘ক্যাম্পবেল বে’র ছয় হাজার ফুট বিমানক্ষেত্র হওয়ার পর এমন বিমান ওই এলাকাও ঘুরবে। এ ছাড়া এখানে শক্তিশালী রাডার বসানোর পরিকল্পনাও করেছে ভারত।

fd3e2d92-0ffd-11e6-95eb-aaf30b46b489_486x

২০২২ সালের মধ্যে এ দ্বীপপুঞ্জে নৌবাহিনীর জাহাজের সংখ্যা বাড়িয়ে ৩২’শে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে ভারত। বর্তমানে ভারতের হাতে ১৭টি ডিজেল ও বিদ্যুত চালিত পুরনো ডুবোজাহাজের রয়েছে।অন্যদিকে চীনের বহরে রয়েছে ৭০টি  ডুবোজাহাজ। এর মধ্যে পরমাণু শক্তি চালিত ডুবোজাহাজও রয়েছে। ধিরে ধিরে এই দ্বীপপুঞ্জ ভারতীয় সেনাবাহিনীর শক্ত ঘাঁটি হতে চলেছে।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *