“এ মৃত্যুর উপত্যকা আমার জন্মভূমি নয়”, সুজাতা ভৌমিক মণ্ডল

kashmir-terror-attack-4গত বৃহস্পতিবার, ১৫,২,১৯, বিকেল সোয়া ৩টার সময় জম্মু-শ্রীনগর ৬ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে সিআরপিএফ এর ৭৮টি গাড়ির বহর প্রায় আড়াই হাজারেরও বেশী সিআরপিএফ জওয়ান নিয়ে পুলওয়ামা জেলার অবন্তীপোরার বাইপাসের কাছে গোরীপোরা এলাকার ওপর দিয়ে যাচ্ছিলো। এলাকাটি শ্রীনগর থেকে ২০কিলোমিটার দূরে।

৩৫০ কিলো ওজনের বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি নিয়ে এক আত্মঘাতি হামলাকারী সিআরপিএফ সেনা বহরের মধ্যে ঢুকে পড়ে। ঢুকেই সে বহরের একটি গাড়িতে ধাক্কা মারে। ফলে ভয়ংকর বিস্ফোরণ ঘটে। যে গাড়ির সঙ্গে ধাক্কায় বিস্ফোরণ ঘটে, সেটিতে ৫০ জনেরও বেশি জওয়ান ছিলেন বলে জানা যায়। ঘটনাস্থলেই ৪২ জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। আহত ৪০ জনেরও বেশী এবং ২০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। জঙ্গিরা শুধু বিস্ফোরণ ঘটিয়েই ক্ষান্ত থাকেনি,তারা আড়াল আবডালে লুকিয়ে থেকে নির্বিচারে গুলি বর্ষণ করে।

ভূস্বর্গে আবার মৃত্যুর মিছিল। পাকিস্তানি মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইস-ই-মহম্মদ দ্বারা সংঘটিত কাপুরুষের মতো আক্রমনে প্রাণ গেল ভারতীয় সিআরপিএফ সেনা জওয়ানদের।  এই প্রতিবেদনটি যখন লিখছি সেই পর্যন্ত প্রাপ্ত মৃতের খবর বেড়ে হয়েছে ৪৪ জন।

স্বাধীনতার পরে কাশ্মীরে সর্ববৃহৎ জঙ্গিহানা হয়ে গেল গত বৃহস্পতিবার। পাকিস্থান অবস্থিত সন্ত্রাসী সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের জনৈক মুখপত্র এই আত্মঘাতি হামলার বিষয়টি স্বীকার করে বলে যে ‘আদিল আহমদ দার’ দ্বারাই এই আত্মঘাতি হামলাটি ঘটানো হয়েছে।

এবার দেখে নেওয়া যাক কে এই আদিল আহমদ দার? আদিল আহমদ দার সম্পর্কে বেশ কিছুদিন ধরে নানান টুকরো টাকরা সন্ত্রাসবাদী হামলায় জড়িত থাকার কথা শোনা যাচ্ছিলো। তাই সন্দেহভাজনদের তালিকায় ছিল। কিন্তু প্রশাসন গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়নি। জঙ্গল-পাহাড়ে পালিয়ে আত্মগোপন করে বেড়াচ্ছিল। ২০১৮সালে সীমান্ত টপকে পাকিস্তানে  চলে যায় এবং জইস- ই- মহম্মদে যোগদান করে।সেই আদিল ই গতকাল আত্মঘাতী হামলা ঘটায়।

কেন হামলা করল আদিল? সূত্রের খবর, আফজল গুরু ও মাসুদ আজাহারের ভাগ্নে তলহা রশিদের মৃত্যুর বদলা নিতেই এই আক্রমণ।

আমাদের দেশে গোয়েন্দা সংস্থা আছে, আধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত সেনাবাহিনী আছে,গালভরা ভাষণ দেওয়া বড় বড় নেতারা আছে, মাথাভারি প্রশাসন আছে কিন্তু সব থাকা সত্ত্বেও আদিলের মতো চুনোপুঁটিকে হদিস করে গ্রেফতার করতে পারি না !!

সাধারনত সেনাবাহিনীর বহর চলার সময় সাধারন যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকে। সিআরপিএফ বহর চলাচলের ক্ষেত্রে থাকে না। সে হতে পারে, তাবলে একটি বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি হটাত করে বহরের মধ্যে চলে আসবে বিনা তল্লাশিতে !! নিরাপত্তার চরমতম গাফিলতির নিদর্শন। স্থানীয় মানুষরা জইশ-এ-মহম্মদ সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে সেটার খবর গোয়েন্দা বাহিনীর কাছে থাকবে না? বিস্ময়কর। স্থানীয় মানুষরা কেউ কেউ সন্ত্রাসবাদীদের কাছ থেকে আত্মঘাতী হামলা চালানোর প্রশিক্ষণ নিচ্ছে সেই খবর যখন প্রশাসনের কাছে থাকে না তখন গোয়েন্দাবাহিনীর কি প্রয়োজন ? আর ০০৭ মার্কা ইমেজওয়ালা অজিত দোভালেরই বা কি প্রয়োজন।

শুরুটা ছিল ১৯৯৯ সাল, আইসি ৮১৪ বিমান জঙ্গিরা অপহরণ করে। বিনিময়ে ভারতের হাতে ধরা পরা কুখ্যাত জঙ্গি আজাহার মাসুদের মুকতি দাবি করে। ছেড়ে দেওয়া হয় সেই কুখ্যাত জঙ্গিকে। ছাড়া পেয়ে গঠন করে জঙ্গি সংগঠন ‘জইশ’। ২০০৮ মুম্বাই হামলা, ২০১৬ উরি হামলা সবের নেপথ্যে ছিল ‘জইশ’। এখন প্রশ্ন হচ্ছে কেন বারবার দেশের জন্য নিবেদিত বীর জওয়ানরা জঙ্গি হানায় প্রাণ দেবে? এর নেপথ্যের কারণ সত্যি কি আমরা জানিনা? জাতীয়তাবোধ যখন তীব্র তখনও কি আমরা মানবিকতার দোহাই দেবো? আর কতদিন?

জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার তীব্র নিন্দা করল আমেরিকা, পাশাপাশি জানিয়ে দিল সন্ত্রাসবাদ দমনে ভারতের পাশেই থাকবে তারা।

ভারতে আমেরিকার রাষ্ট্রদূত কেনেথ জস্টার ট্যুইটে লিখেছেন, “জম্মু কাশ্মীরে হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে আমেরিকা, ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি আমাদের সমবেদনা”।

পাম্পোর, উরি, পাঠানকোট, গুরুদাসপুর, অমরনাথ, সুরজানপুর তালিকার শেষ নেই। প্রত্যেকদিন পাকিস্তান আক্রমণ করছে।প্রত্যেকদিন যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন হচ্ছে, শুধুমাত্র জম্মু কাশ্মীরেই শহিদ হয়েছেন ৪০০ জওয়ান, তাও নিসচুপ, নীরব দর্শক আমরা। আর কবে ফেটে পড়বো আমরা? আজকের সত্যটা হল,পাকিস্তান থেকে প্ররোচিত হামলার সম্মুখীন হচ্ছে ভারত।

সামনে লোকসভা নির্বাচন, বিজেপি ব্যস্ত  সার্জিকাল স্ট্রাইকের ঢোল বাজাতে, সেই মূহুর্তে এই হামলা। ভোটের রাজনীতির বাইরে দেশের প্রাধনমন্ত্রী তার কতর্ব্য দেশ ও দেশবাসীকে অনন্ত নিরাপত্তার আশ্বাস দেওয়া। তিনি ভুলতে বসেছেন তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী, কোন নিদির্ষ্ট দলের নন।

উরির পর এটা সবচেয়ে বড় হামলা। কিন্তু অসন্তোষ প্রকাশের কোনও সময় নেই মোদীজির। এই ভাবে চলতে থাকলে আমার ভারতভূমি আর কিছুদিনের মধ্যেই বধ্যভূমিতে পরিণত হবে।

পরিশেষে বলি এ মৃত্যুর উপত্যকা আমার জন্মভূমি নয়। 

সুজাতা ভৌমিক মণ্ডল

সুজাতা ভৌমিক মণ্ডল

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *