–“আশ্রয়”–লিখেছেন, দেবাশীষ সিং।

Dscn0978_zps3c9e1fd0আমি জানতাম না এতোটা শূন্যতা তৈরি হয়। জানতাম না নিজেকে কষ্ট দেওয়াটা কখনো কখনো দম বন্ধ করে দেয়। বৃষ্টির জলের স্বাদটা নোন্তা হয়ে গেলে সেটা আর কল্পনাকে উস্কে দেয় না, সেটা তখন মাথার মধ্যে তিব্র যন্ত্রণা তৈরি করে। সেই যন্ত্রণাটা ক্রমশ পৌঁছে যায় স্মৃতিগুলোতে আর অদ্ভুত একটা মায়াজাল তৈরি করে। ফেলে আসা দিন, ফেলে আসা মুহুর্তগুলো যেন সারে সারে সামনে এসে দাড়ায় আর জিজ্ঞেস করে তাদের প্রয়োজনীয়তা। তাদের উপলব্ধি যেন জীবন কে একটা নতুন রুপে দেখায়। নিজের সাথে জবাবদিহি করতে করতে জীবন ক্লান্ত হয়ে পড়ি, হাত বাড়িয়ে যখন আশ্রয় খুঁজি, তখন এরাই প্রশ্ন তোলে।আশ্রয়??? কাকে বলে আশ্রয়! কে দেবে আশ্রয়??? কতজন খুঁজে পায় আশ্রয়?? আসলে তো আমরা খুঁজি একটা নিরাপত্তা।সবরকম, যদিও আমরা বরাবরই দুমুখো। মুখে বলি এক করি আরেক। কিন্তু তবু আমরা সকলেই চাই নিরাপত্তা। আর সেটা কে নাম দিই আশ্রয়, যে শব্দটার বাস্তব অস্তিত্ব নিয়ে আমার অন্তত যথেষ্ট সন্ধেয় আছে। সেই আশ্রয় কি আমরা চাই যার নিচে নিরাপত্তা নেই। যেমন একটা মানুষের সামনে একটা শামুকের খোল??? না মানুষের জন্য সেটা যথেষ্ট নয়। কিন্তু একটা শামুকের জন্য একটা সাত মহল্লা বাড়ির কি প্রিয়জন? তাহলে তার কাছে আশ্রয় কি দাঁড়াল??? আচ্ছা যারা কোনদিন আশ্রয় পেল না তাদের কি হয়??? তাদের খোঁজাটা আদতে কোনদিন শেষ হয় না??? তারা কি কোনদিন তিরে তরি ভেড়াতে পারে না??? সারা জীবন শুধু খোঁজা থেকে যায়। ছন্দে বাধা কবিতার শেষ লাইন যদি না মেলে তবে কি কবিতার মানে থাকে না। আমরা বলি সব ভালো তার শেষ ভালো যার, যে সম্পর্কের শেষ নেই। বা শেষ হল না তার কি কোনো মর্যাদা থাকে সময় এর হিসেবে। নিজের মহিমা কি হারিয়ে ফেলে সে??? কিন্তু আশ্রয় তো  খুঁজেছিল, আর খুব মন দিয়েই খুঁজেছিল। কি দোষ তার যদি সে আশ্রয় খুঁজে না পায়। তার চেষ্টার কি কোন দাম থাকবে না। সময় এর কাঠগড়ায় কি বিচার হবে তার, পূর্ণতা নাকি অপ্রাপ্তি? নিরাশ্রয় মানুষের কি পূর্ণতা পেতে নেই? নাকি পূর্ণতা শুধু আশ্রয় এনে দেয়???…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *